নাটকীয় জয়ে সিরিজে ১-০’তে এগিয়ে বাংলাদেশ

0
19
বাংলাদেশ যুবা দল

শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিপক্ষে দ্বিতীয় যুব ওয়ানডেতে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। তিন পেসার শাহিন আলম, শরিফুল ইসলাম ও মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরীর বোলিংয়ের ফাঁদে পড়ে বড় সংগ্রহ করতে পারেনি লঙ্কানরা। জবাবে ব্যাট হাতে শামিম হোসেন ও আকবর আলীর দৃঢ়তায় বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচে ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে ৮ রানের জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। এই জয়ে  ম্যাচের সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেল যুব টাইগাররা।


বৃষ্টির কারণে সময় সীমিত হওয়ায় ৪৩ ওভারে ৯ উইকেটে ১৯২ রান করেছিল শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ দল। জবাবে ২০.৪ ওভারে ৪ উইকেটে বাংলাদেশ ইনিংসের ১০১ রানের সময় আবারো বৃষ্টি শুরু হয়। ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতিতে সে সময় জয়ের জন্য ৯৩ রান প্রয়োজন ছিল অতিথিদের।  বৃষ্টির কারণে আর খেলা না হওয়ায় এই পদ্ধতিতে ৮ রানে জয়ী ঘোষণা করা হয় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলকে।

দুই দলের প্রথম ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যাক্ত হয়। আগামী শনিবার একই ভেন্যুতে হবে তৃতীয় ওয়ানডে।

শ্রীলঙ্কার ডাম্বুলার রনগিরি ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ (বৃহস্পতিবার) বৃষ্টির জন্য ম্যাচের দৈর্ঘ্য নেমে আসে ৪৩ ওভারে। শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ দল টস জিতে শুরুতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়।  লঙ্কান যুবাদের হয়ে সর্বোচ্চ ৮৩ রানের ইনিংসটি খেলেন নাভোদ পারানাভিথানা। ১২৪ বলে ৭টি চারে এ ইনিংসটি খেলেন স্বাগতিক দলের এ ওপেনার। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৩ রান করেন অভিষকা থারিন্দু। এছাড়া নিপুন ধনঞ্জয়া ২৩, মোহাম্মদ শামাজ ১২ রান করেন।

বল হাতে বাংলাদেশের হয়ে ৪৩ রানে সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট নেন শাহীন আলম। ৪৯ রানে ৩টি উইকেট নেন মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম। এছাড়া ২টি উইকেট পান মোহাম্মদ মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী।

জবাবে, বাংলাদেশের ইনিংসের শুরুটা ছিল বাজে। দশম ওভারে ৪৩ রানের মধ্যে ফিরে যান প্রথম চার ব্যাটসম্যান। দুই অঙ্কে যেতে পারেননি আগের ম্যাচে ঝড়ো ফিফটি করা ওপেনার তানজিদ হাসান ও অধিনায়ক তৌহিদ হৃদয়। যথাক্রমে ১৩ রান করা মাহমুদুল হাসান ও অমিত হাসানকে প্যাভিলিয়নে ফেরান পারানাভিথানা।

এরপর খাদের কিনারা থেকে দলকে টেনে তোলেন শামিম হোসেন ও আকবর আলী। তাদের ব্যাটে শুরুর ধাক্কা সামলে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। বৃষ্টির বাধায় বাংলাদেশ ইনিংসের ২০ ওভার ৪ বল পর খেলা বন্ধ হয়ে যায়। এরপর আর খেলা সম্ভব না হলে জিতে যায় বাংলাদেশ। ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতিতে সে সময় জয়ের জন্য ৯৩ রান প্রয়োজন ছিল অতিথিদের, বাংলাদেশের স্কোর ছিল সে সময় ১০১/৪।

শামিম ৪৩ বলে অপরাজিত থাকেন ২৭ রানে। কিপার ব্যাটসম্যান আকবর ৩৬ বলে অপরাজিত থাকেন ৩০ রানে। বৃষ্টি আইনে ৮ উইকেটে জয় পায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল।

Facebook Comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here